ইন্ডিয়ান ভিসার পোর্ট পরিবর্তন

ইন্ডিয়ান ভিসার পোর্ট পরিবর্তন/সংযোজন

হ্যালো রিডার! কেমন আছেন? এখন ইন্ডিয়ান ভিসা পাওয়া তুলনামূলক সহজ। অনেকে ভ্রমণকারী নির্বোধের ইন্ডিয়ান ভিসা আবেদনের পোস্ট দেখে ইন্ডিয়ান ভিসা করছেন। ইদানিং বেশিয়ারভাগ ভ্রমণকারীই মাল্টিপল এন্ট্রি ভিসা পাচ্ছেন। তাদের দেখা যাচ্ছে আবেদনের সময় যে পোর্ট উল্লেখ করেছেন সে পোর্ট দিয়ে একবার ভারত ভ্রমণ করেছেন অথবা ভ্রমণ পরিকল্পনা পরিবর্তন হওয়ায় এখন নতুন পোর্ট দিয়ে যাওয়া দরকার। এই সমস্যার কথা বিবেচনা করে ইন্ডিয়ান হাই কমিশন এখন বর্তমান ভিসাতেই নতুন পোর্ট যুক্ত করার সুবিধা দিচ্ছে। পুরো প্রক্রিয়াটা খুব সহজ। চলুন দেখে নিই কিভাবে আপনার বর্তমান ভিসাতে পোর্ট সংযোজন করবেন।

পোর্ট পরিবর্তন বা সংযোজন কি?

ইন্ডিয়ান ভিসাতে কোন পোর্ট দিয়ে আমরা ইন্ডিয়াতে প্রবেশ ও বাহির হতে পারব সেটা ভিসা আবেদনের সময়ই উল্লেখ করে দিতে হয় ও সেভাবেই আমাদের ভিসা দেয়া হয়। কিন্তু ওই উল্লিখিত পোর্ট বাদ দিয়ে অন্য পোর্ট দিয়ে যাতায়াত করতে হলে আমাদের নতুন পোর্ট সংযোজন করতে হয়। আসলে যেটাকে আমরা পোর্ট পরিবর্তন বলি সেটা হবে পোর্ট সংযোজন। কারণ ভিসাতে নতুন পোর্টের অনুমোদন নিলে আগের পোর্টের অনুমোদনও সচল থাকে।

ইন্ডিয়ান ভিসার পোর্ট সংযোজন প্রক্রিয়া

পোর্ট সংযোজন প্রক্রিয়া খুবই সহজ ও ঝামেলামুক্ত। আগের মত আগে ইমেইল করে অনুমতি নিয়ে পরে পাসপোর্ট নিয়ে হাই কমিশনে যেত হয় না। ভিসা আবেদনের মতই আইভ্যাকে গিয়ে পোর্ট সংযোজন এর আবেদন জমা দিতে হয়। পোর্ট সংযোজন এর আবেদন জমা দিতে নিচের দুটি রিকোয়ারমেন্ট ফুলফিল করতে হবে।

  • বর্তমান ভিসার মেয়াদ কমপক্ষে ৩ মাস থাকতে হবে
  • পাসপোর্টে কমপক্ষে দুটি খালি পাতা থাকতে হবে

এখন উপরের দুটি বিষয় ঠিক থাকলে আপনি আবেদন করতে পারবেন।

ইন্ডিয়ান ভিসার পোর্ট সংযোজন করতে কি কি লাগবে

  • পোর্ট সংযোজন আবেদন ফরম
  • মূল পাসপোর্ট
  • ১ কপি ছবি (২x২ সাইজের)
  • পাসপোর্ট এর ১ কপি ফটোকপি
  • বর্তমান ইন্ডিয়ান ভিসার ১ কপি ফটোকপি

পোর্ট সংযোজন আবেদন ফরম পূরণ করা

পোর্ট সংযোজন এর আবেদন ফরমটি ডাউনলোড করুন এখান থেকেএরপর সতর্কতার সাথে পাসপোর্ট অনুযায়ী ফরমটির সকল ঘর পূরণ করুন। ৬ নম্বর ঘরে (Additional ports requested (maximum of 2 ports)) আপনি এখন যে পোর্ট যুক্ত করতে চান তার নাম লিখুন। এখানে আপনি একসাথে, এক খরচেই নতুন ২ টি পোর্টের জন্য আবেদন করতে পারবেন। পোর্টের নামগুলো বড় হাতের অক্ষরে এভাবে লিখুন BY ROAD DAWKI, BY ROAD AGARTALA ইত্যাদি (আপনার যেটা দরকার)। তারপর নিচে স্বাক্ষর করুন ও তারিখ লিখুন।

আবেদন জমা দেয়া

আবেদনটি জমা দিতে আপনি আপনার নিকটস্থ আইভ্যাকে চলে যান। সেখানে গিয়ে টোকেন নিয়ে নির্দিষ্ট কাউন্টারে আবেদন ফি দিয়ে আবেদনটি জমা দিন। পোর্ট সংযোজন ফি ৩০০ টাকা মাত্র! আপনি একটা বা দুইটা পোর্ট যাই চান না কেন আবেদন ফি একই।

এখন তারা আপনাকে নিচের ছবির মত রশিদ দিবে। যাতে পাসপোর্ট ফেরত দেয়ার সম্ভাব্য তারিখ দেয়া থাকবে।

পোর্ট এন্ডোর্সমেন্ট আবেদনের রশিদ (সৌজন্যে MD Arif Hossain)

আবেদন ট্র্যাক করা ও পাসপোর্ট ফেরত নেয়া

পোর্ট পরিবর্তন আবেদন সম্পন্ন হতে সাধারণত ১০ দিনের মত সময় লাগে। কারো কারো ক্ষেত্রে এর চেয়েও বেশি লাগতে পারেন। তবে আপনার আবেদনের বর্তমান অবস্থা অনলাইনে ট্র্যাক করতে পারেন। আবেদন ট্র্যাক করতে যান এই লিংকে। এখানে দুটি অপশন পাবেন। আপনি Port Endorsement, R.A.P./P.A.P. তে ক্লিক করুন। এরপর ক্যাপচা আর পাসপোর্ট নম্বর দিয়ে সাবমিটে ক্লিক করলেই দেখতে পারবেন কি অবস্থায় আছে আবেদন।

আবেদন প্রসেসিং সম্পন্ন হলে আপনার ফোনে এসএমএস আসবে ও অনলানেও দেখতে পারবেন। তারিখটি এভাবে দেয়া থাকে ‘Delivery on or after: 09/Oct/19’. এর মানে আবেদন প্রসেসিং সম্পন্ন হলে উল্লিখিত তারিখ বা এর পর যেকোনদিন নির্ধারিত সময়ে পাসপোর্ট ডেলিভারি নিতে পারবেন। যদি অনলাইনে রশিদে উল্লিখিত তারিখের আগেই পাসপোর্ট রেডি দেখায় তাতেও আগে দিবে না।

সচরাচর জিজ্ঞাসিত প্রশ্ন ও উত্তর

আমি আমার বর্তমান ভিসাতে একবারও ভ্রমণ করিনি, আমি কি পোর্ট সংযোজন এর আবেদন করতে পারব?

হ্যা, পারবেন।

নতুন পোর্ট এড করলে কি আগের পোর্ট বাদ হয়ে যাবে?

না, আগেরটাও সচল থাকবে।

শেষকথা

ইন্ডিয়ান ভিসার পোর্ট পরিবর্তন/সংযোজন নিয়ে বিস্তারিত লেখার চেষ্টা করেছি। তারপরেও আরো কোন প্রশ্ন থাকলে করুন। আমি উত্তর দিব। তবে এমন প্রশ্ন করবেন না যার উত্তর এখানেই আছে।

আর আপনার কাছে যদি আপডেট তথ্য থাকে অথবা কোন তথ্য ভুল মনে হয় তাহলে দয়া করে কমেন্ট করে জানান, আমি আপডেট করব। এতে সবারই উপকার হবে। আমি প্রপার ক্রেডিট দেয়ার চেষ্টা করব। অনেক ধন্যবাদ মনোযোগ দিয়ে পড়ার জন্য। 🙂

লেখক সম্পর্কে

Freelance Internet Researcher & Lead Generation Specialist at | Website

ভালো লাগে নিত্য-নতুন বিষয় সম্পর্কে জানতে ও অন্যকে জানাতে। লিখতে অনেক ইচ্ছে হয় কিন্তু সময় বের করে লিখতে পারি না। আর কিছু লিখতে পারলে অনেক ভালো লাগে। ২০১৩ সাল থেকে ফ্রিল্যান্স ইন্টারনেট রিসার্চার ও সেলস এসোসিয়েট হিসেবে কাজ করছি আপওয়ার্কে। বর্তমানে বি.এসসি ইন সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ছি ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশে। কিন্তু ইঞ্জিনিয়ারিং-এ মন নেই, পড়তে হচ্ছে বলে পড়ছি। ক্যারিয়ারে নিজের মত করে কিছু করতে মন চায়। ভ্রমনের প্রতি আকর্ষন তীব্র আমার। তবুও দেখা যায় বছর শেষে দু এক জায়গার বেশি যাওয়া হয় না। 🙁 আরো পড়ুন https://nirbodh.com/about/

সাইফুল ইসলাম সোহেল

ভালো লাগে নিত্য-নতুন বিষয় সম্পর্কে জানতে ও অন্যকে জানাতে। লিখতে অনেক ইচ্ছে হয় কিন্তু সময় বের করে লিখতে পারি না। আর কিছু লিখতে পারলে অনেক ভালো লাগে। ২০১৩ সাল থেকে ফ্রিল্যান্স ইন্টারনেট রিসার্চার ও সেলস এসোসিয়েট হিসেবে কাজ করছি আপওয়ার্কে। বর্তমানে বি.এসসি ইন সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ছি ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশে। কিন্তু ইঞ্জিনিয়ারিং-এ মন নেই, পড়তে হচ্ছে বলে পড়ছি। ক্যারিয়ারে নিজের মত করে কিছু করতে মন চায়। ভ্রমনের প্রতি আকর্ষন তীব্র আমার। তবুও দেখা যায় বছর শেষে দু এক জায়গার বেশি যাওয়া হয় না। :-( আরো পড়ুন https://nirbodh.com/about/

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.